মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৪, ২০২০

পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রী ও ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা

 

ফতুল্লা প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লা ভোলাইল গেদ্দারবাজার এলাকায় হারেছ (৪৫) নামের এক রিস্কা চালক মঙ্গলবার দিবাগত রাতে পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রী ও ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা করে এবং নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

বুধবার (৮জুলাই) বিকেল ৫টায় ঢাকা মেডিকেলে কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঘাতকের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম  মৃত্যু বরণ করেন।

এলাকাবাসী বলেন, হারেছ পেশাগত একজন রিস্কা চালক ছিলেন তার স্ত্রী ও দুই সন্তানকে নিয়ে ভোলাইল গেদ্দারবাজার এলাকায় শাহ আলম মেয়র মালিকানাধীন টিনশেড বাড়ি একটি ঘরে ভাড়া থাকতেন স্ত্রী ও ছেলে হোসেয়ারিতে কাজ করতেন এবং মেয়ে বিথী (১২) পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী তাদের গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের ত্রিশালে মঙ্গলবার  রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে পারিবারিক কলহের জেরে ঝগড়া শুরু হয় একপর্যায়ে ঘরে থাকা ধারালো ছুরি দিয়ে স্ত্রী ও ছেলেকে এলো পাথারি কুপিয়ে জখম করেন এবং নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন মঙ্গলবার রাতে ঘটনাস্থলেই ছেলে সোহাগের (১৫) মৃত্যু হয়। হারেছ ও তার স্ত্রী মনোয়ারা বেগম (৩৫) গুরুতর অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন সাংবাদিককে জানান, পারিবারিক কলহের জেরে রিস্কা চালক হারেছ স্ত্রী ও ছেলেকে ছুরি দিয়ে রক্তাক্ত জখম করে পরে নিজেও নিজেকে ছুরি দিয়ে আহত করেন।রক্তাক্ত অবস্থায় তিনজনকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় সেখানে চিকিৎসক ছেলেকে মৃত ঘোষণা করেন পরে স্বামী ও স্ত্রী কে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ছেলের পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেলে ৫টায় মনোয়ারা বেগম  মারা যান এবং ঘাতক হারেছ  গুরুতর অবস্থায় চিকিৎসাধীন আছেন।

 

নারায়ণগঞ্জ কথা এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Shares
error: Alert: Content is protected !!