Home জীবন কথা কিন্ডারগার্টেন ও সমমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সরকারী প্রণোদনা সহ ৬ দফা দাবি আদায়ে লক্ষ্যে মানববন্ধন

কিন্ডারগার্টেন ও সমমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সরকারী প্রণোদনা সহ ৬ দফা দাবি আদায়ে লক্ষ্যে মানববন্ধন

কিন্ডারগার্টেন ও সমমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সরকারী প্রণোদনা সহ ৬ দফা দাবি আদায়ে লক্ষ্যে মানববন্ধন
কিন্ডারগার্টেন ও সমমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সরকারী প্রণোদনা সহ ৬ দফা দাবি আদায়ে লক্ষ্যে মানববন্ধন

নারায়ণগঞ্জ কথা : সিদ্ধিরগঞ্জ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঐক্য পরিষদেও উদ্যোগে নারায়ণগঞ্জ সিদ্ধিরগঞ্জের ১৪৫টি বেসরকারি কিন্ডারগার্টেন ও সমমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারীদের জন্য সরকারী প্রণোদনা সহ ৬ দফা দাবি আদায়ে লক্ষ্যে মানববন্ধন করেন।সিদ্ধিরগঞ্জ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঐক্য পরিষদের সভাপতি জনাব মো: মজিবুর রহমানের, সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব মো: আরিফ হোসেন ঢালীর, সন্বালনায়।

সোমবার (২৯জুন) সকাল ১০ টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, ঢাকা কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের সদস্য সচিব জনাব জি.এইচ ফারুক এবং বাংলাদেশের বেসরকারি প্রাথমিক ও কিন্ডারগার্টেন শিক্ষক সমিতির মহাসচিব জনাব শেখ মিজানুর রহমান,ও সিদ্ধিরগঞ্জ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঐক্য পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা সাংবাদিক বিল্লাল হোসেন রবিন।অন্যানের মধ্যে আর বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ কিন্ডারগার্টেন স্কুল এন্ড কলেজ ঐক্য পরিষদের চেয়ারম্যান প্রিন্সিপাল ইকবাল বাহার চৌধুরি,ও শিক্ষা সচিব প্রিন্সিপাল মোহাম্মদ আব্দুল ওদুদ,রুপগঞ্জ কিন্ডারগার্টেন ও শিক্ষা উন্নয়ন সমিতির মহাসচিব লায়ন সালেহ আহমদ,সিদ্ধিরগঞ্জ বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঐক্য পরিষদের সাধারন সম্পাদক মো: জাকির হুসাইন,শিফা ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের পরিচালক সাংবাদিক মো:শাহাদাৎ হোসেন স¦পন, বলেন বিশ্বব্যাপি করোনাভাইরাসের মহামারিতে থমকে দাঁড়িয়েছে সারা পৃথিবী।এই করোনাভাইরাসের সংক্রামন প্রতিরোধে গুপ্রজাততœী বাংলাদেশ সরকারের ঘোষনা মোতাবেক গত ১৭ মার্চ ২০২০ইং থেকে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ১৪৫টি বেসরকারি কিন্ডারগার্টেন ও সমমানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আয় বন্ধ গেছে।

যার কারণে চরমভাবে আর্থিক সংকটে পড়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো।যার ফলে এই শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানগুলোতে কর্মরত প্রায় ২৫০০ শিক্ষক-কর্মচারী আজ মানবেতর দিন কাটাচ্ছেন। এয়াড়া ৯৫ ভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভাড়া বাড়িতে পরিচালিত।বাড়ি ভাড়া শিক্ষক শিক্ষিকাদের বেতন,বিদ্যুৎও পানি বিল পরিশোধ করতে হয় ছাত্র-ছাত্রীদেও মাসিক টিউশন ফি থেকে। কিন্তু স্কুল বন্ধ থাকার কারনে স্কুল কতৃপক্ষ, শিক্ষক- শিক্ষিকারা অর্থনৈতিক ভাবে নিদারুন কষ্টে দিনাতিপাত করছে। আমরা আশাবাদি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মানবিকভাবে এই শিক্ষক-কর্মচারীদের দিকে সু-দৃষ্টি দিবেন এবং কার্যকরী প্রদক্ষেপ নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Shares
error: Alert: Content is protected !!