Home অপরাধ রানা প্লাজা ভবন ধসে ২৪এপ্রিলকে রাষ্ট্রীয়ভাবে গার্মেন্টসশ্রমিক শোক দিবস দাবি

রানা প্লাজা ভবন ধসে ২৪এপ্রিলকে রাষ্ট্রীয়ভাবে গার্মেন্টসশ্রমিক শোক দিবস দাবি

রানা প্লাজা ভবন ধসে ২৪এপ্রিলকে রাষ্ট্রীয়ভাবে গার্মেন্টসশ্রমিক শোক দিবস দাবি

নারায়ণগঞ্জ কথা ডটকম : রানা প্লাজা ধসেরষষ্ঠবার্ষিকীতে গার্মেন্টস শ্রমিক রাষ্ট্রীয়ভাবে শোকদিবস পালনের দাবিতে এপ্রিল শুক্রবারবিকাল টায় গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জজেলার উদ্যোগে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহিদমিনারে সমাবেশ শহরে মিছিল

গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলারসভাপতি সেলিম মাহমুদের সভাপতিত্বে সমাবেশেপ্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিকফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক,আরো বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টনারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আবু নাঈম খানবিপ্লব, গার্মেন্টস শ্রমিক ফ্রন্ট নারায়ণগঞ্জ জেলারসাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম গোলক, সহসভাপতি সাইফুল ইসলাম শরীফ, কাঁচপুর শাখারসভাপতি আমানউল্লাহ আমান, সিদ্দিরগঞ্জ থানারসাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন সোহাগ, বিসিকশাখার সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সাঈদুর,রূপগঞ্জ শাখার সভাপতি সোহেল, গাবতলীপুলিশলাইন শাখার সাধারণ সম্পাদক হাসনাত কবীর,নারায়ণগঞ্জ জেলার দপ্তর সম্পাদক কামালপারভেজ মিঠু

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ভয়াবহ রানা প্লাজা ধসেরষষ্ঠ বছর পূর্ণ হতে যাচ্ছে ২০১৩ সালের ২৪এপ্রিল রানা প্লাজা ধসে ১১৩৬ জন শ্রমিকমৃত্যুবরণ করে, নিখোঁজ হয়েছে ৩০০ জনেরঅধিক এবং আহত হয় ২৫০০ শ্রমিক সারাকা,স্পেক্ট্রাম, কে.টি.এস, তাজরিন এরূপ অসংখ্যশ্রমিক হত্যাকারে জন্য যারা দায়ী এখন পর্যন্ততাদের শাস্তি নিশ্চিত করা হয়নি

ঘটনার বিচারহীনতার মতোই রানা প্লাজা হত্যাকান্ডরে দায়িত্ব অবহেলার জন্য দায়ী অসাধু সরকারি র্কমর্কতা আর মুনাফালোভী মালিকদের বিচাররে মুখোমুখি হতে হয়নি বলেই রানা প্লাজা হত্যাকা-রে পরও টেম্পাকো, মাল্টি ফ্যাবসরে মত র্কমস্থলে শ্রমিকের জীবনহানীর মিছিল থামানো যায়নি।

তিনি আর বলনে, হাইর্কোটরে নির্দেশনায় গঠিত ক্ষতিপূরণ নির্ধারণ কমিটি ও ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিক পরিবার প্রতি ১৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ নির্ধারণের প্রস্তাব করেন।আর লাখ লাখ শ্রমিকরে যথার্থ ক্ষতিপূরণের দাবিকে উপেক্ষা করে কর্মস্থলে শ্রমাকের মৃত্যুতে মাত্র ২ লাখ টাকা এবং স্থায়ী পঙ্গু হলে মাত্র ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণের বিধান রাখেন, কিন্তু রানা প্লাজা ধসে সহস্রাধিক শ্রমিক নহিতের ঘটনার পরপরই কর্মস্থলে শ্রমিকের মৃত্যুতে ক্ষতিপূরণের হার কত হওয়া উচিত তার একটি প্রস্তাবনা দেয়া হয়েছিল।পরর্বতীতে অধিকাংশ জাতীয় র্পযায়ের শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকেও মালিকের আবহেলায় মৃত্যুজনিত কারনে আজীবন আয়ের সমপরিমাণ অর্থ ক্ষতিপূরণ প্রদানের বিধান করার দাবি উচ্চারিত হয়েছিল।

নতেৃবৃন্দ ২৪ এপ্রিলকে রাষ্ট্রীয়ভাবে র্গামেন্টস শ্রমিক শোক দিবস ঘোষণা, রানা প্লাজা ভবন ধসে মালিকসহ দায়ীদরে র্সবোচ্চ শাস্তি, রানা প্লাজা ভবনের সম্পিত্ত বাজেয়াপ্ত করে শ্রমকি এবং নিহত শ্রমিকদের স্মরণে রানা প্লাজার স্থানে ও জুরাইন কবরস্থানে শহিদ বেদী নির্মাণরে দাবি করনে।

Shares
error: Alert: Content is protected !!