বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৩, ২০২০

মেম্বার আইয়ুব আলী আমাদের কোন খোঁজ খবর নেয়নি আমরা বাঁচতে চাই, বাঁচার মত, না খেয়ে মরতে চাই না,

 

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস এর প্রথম রোগী পাওয়া যায় নারায়ণগঞ্জে। তাই সরকার নারায়ণগঞ্জের কিছু কিছু এলাকা লক ডাউন করেন। কিন্তু দিন দিন নারায়ণগঞ্জের রুগি বেশি সনাক্ত হয় ।পরিস্থিতি দেখে নারায়ণগঞ্জ সিটি মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী ও নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমান কারফিউ দাবি করেন সরকারের কাছে। এর পরে পুর নারায়ণগঞ্জ প্রশাসন করাকরিভাবে লকডাউন বিষয়টি জানান ও হতদরিদ্র মানুষের মাঝে ত্রান সামগ্রী পোচ্ছে দিবেন বলে আশ্বাস দেন।কিন্তু দেওভোগ আমবাগান কাশিপুর ইউনিয়ন ৬ ও ৮ নং ওয়ার্ড এর নারী-পুরুষ খাদ্যের অভাবে ঘর থেকে বের হয়ে রাস্তায় নেমে আসেন।

মঙ্গলবার (৮ই এপ্রিল) সকাল থেকে নারায়ণগঞ্জ দেওভোগ আমবাগান কাশিপুর ইউনিয়ন ৬ ও ৮ নং ওয়ার্ড এর নারী-পুরুষ খাদ্যের অভাবে ঘর থেকে বের হয়ে রাস্তায় নেমে আসেন।

এ সময় এলাকাবাসী বলেন, গত ২৬ মার্চ থেকে সরকার বলেছে সবাইকে ঘরে থাকতে সবার বাড়ি বাড়ি খাবার পৌঁছে দিবেন। কিন্তু আমাদের এলাকায় কেউই কোন খাবার দেয়নি, আমাদের ওয়ার্ড মেম্বার আইয়ুব আলী সবার ভোটার কার্ডের ফটোকপি নেয়। কিন্তু তিনি এখনো আমাদের জন্য কিছুই করেনি তাই আজ আমরা সকলেই ঘর থেকে বের হয়েছি ।আমরা এতদিন যাবৎ সরকারের কথামতো লকডাউনকে মেনে বাসায় ছিলাম। কিন্তু আমাদের আর সম্ভব হচ্ছে না। আমরা বাঁচতে চাই, বাঁচার মত, না খেয়ে মরতে চাই না।তাই আমাদের সরকারের কাছে অনুরোধ আপনি প্রশাসনের মাধ্যমে আমাদের ঘরে খাবারের ব্যবস্থা করেদেন ।আমাদের এলাকার মেম্বার আইয়ুব আলী  আমাদের কোন খোঁজ খবর নেয়নি।আমাদের এলাকার মেম্বার আইয়ুব আলী আমাদের কোন অনুদান তিনি দেননি। সরকারের বরাদ্দ যে খাবার দেয়ার কথা তাও দেয়নি। আমাদের এই ৬ ও ৮ নং ওয়ার্ড মেম্বার আইয়ুব আলী তিনি নিজেও কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। তাই আজ আমরা সবাই রাস্তায় নেমেছি আমাদের আকুল আবেদন যে আমরা ঘরে থাকতে চাই। কিন্তু আমাদের ও আমাদের সন্তানদের খাবারের ব্যবস্থা করে দেন আমরা বাঁচতে চাই।

 

নারায়ণগঞ্জ কথা এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Shares
error: Alert: Content is protected !!