বুধবার, নভেম্বর ২৫, ২০২০

নাগিনা জোহার ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকীকে দোয়ায় অংশ নিতে সকলের প্রতি আহবান

 

স্টাফ রিপোর্টার : ৭ মার্চ শনিবার ভাষা সৈনিক ও রত্মগর্ভা মরহুম নাগিনা জোহার ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকী। মরহুমার মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষ্যে তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে। যার মধ্যে শনিবার সকাল থেকে চাষাঢ়া হীরা মহলে কোরান খতম, বেলা ১১টায় মদনপুর বাগদোবাড়িয়া এলাকায় অবস্থিত নাগিনা জোহা উচ্চ বিদ্যালয় মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া এবং বাদ জোহর চাষাঢ়া মসজিদের দোয়া ও এতিম দের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরন করা হবে।

মরহুমার পরিবারের পক্ষ থেকে উক্ত দোয়ায় অংশ গ্রহণ করে মরহুমার আত্মার মাগফেরাত কামনা করতে সকলের প্রতি আহবান জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য মরহুম নাগিনা জোহা ছিলেন একজন রত্নগর্ভা মা। তিনি ভাষা সৈনিক ও স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা এ.কে.এম সামসুজ্জোহার সহধর্মিনী। তিনি ১৯৩৫ সালে অবিভক্ত বাংলার বর্ধমান জেলার কাশেম নগরের জমিদার পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাদের পরিবারের পূর্বপুরুষদের নামানুসারেই গ্রামটির নাম কাশেম নগর রাখা হয়। তার বাবা আবুল হাসনাত ছিলেন সমাজ হিতৈষী ও কাশেম নগরের জমিদার। শিল্প-সংস্কৃতির পৃষ্ঠপোষকতায় তার বিশেষ সুনাম ছিল। মরহুম নাগিনা জোহার বড় চাচা আবুল কাশেমের ছেলে আবুল হাশিম ছিলেন অবিভক্ত ভারতবর্ষের মুসলীম লীগের সেক্রেটারি ও এম.এল.এ। চাচাতো ভাই মাহবুব জাহেদী ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পরিষদের সদস্য ছিলেন। ভাগ্নে পশ্চিমবঙ্গের কমিউনিস্ট নেতা সৈয়দ মনসুর হাবিবুল্লাহ রাজ্যসভার স্পিকার ছিলেন। ১৯৫১ সালে এ কে এম সামসুজ্জোহার সাথে তার বিয়ে হয়। স্বামীর বাড়িতে এসেই ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে অংশ নেন।

 

নারায়ণগঞ্জ কথা এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Shares
error: Alert: Content is protected !!