মঙ্গলবার, অক্টোবর ২০, ২০২০

ছবি সাংবাদিকরা তুলতে গেলে আসামী ও পরিবারকতৃক সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রকার হুমকি ও বাধা প্রদান

 

নারায়নগঞ্জ কথা : ফতুল্লা থানার নব্য আওয়ামীলীগ ৭ জন আসামীর ছবি সাংবাদিকরা তুলতে গেলে আসামী ও পরিবারকতৃক সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রকার হুমকি ও বাধা প্রদান করা হয়।

সোমবার(৪নভেম্বর)সকালে ফতুল্লা থানার মামলা নং ৯৫(৩)১৯ এর ১৪৩/৪৪৮/৩২৩/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৫০৬দ.বি ধারায় ৯জন আসামীর মধ্যে ৭জন আসামী অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অশোক কুমার দত্তের আদালতে আত্নসম্পান করে জামিন আবেদন করলে বিচারক জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরনের নির্দেশ দিলে সাংবাদিকরা আসামীদের ছবি তুলতে গেলে এই ঘটনা ঘটে।

প্রথমে আসামীদের ছবি তুলতে গেলে জামাই সেলিম সাংবাদিকদের সাথে খারাপ ব্যবহার করে এবং নিজেকে একজন বড় সাংবাদিক হিসেবে দাবী করে বলে,তোরা কি সাংবাদিক তোদের থেকে বড় সাংবাদিক আমি।তোরা আমার ছবি কি করে তুলবি তোদের আমি দেখে ছাড়বো। অপরদিকে আসামীদের পরিবারের সদস্যরা বলে দেখি কোন সাংবাদিক ছবি তুলে তোদের মেরে ক্যামেরা ভেঙে দিবো।

আসামীরা হলো ফতুল্লা থানাধীন রামারবাগের আঃগফুরের ছেলে আজিম(২৫),মৃত নুর উদ্দীনের ছেলে জামাই সেলিম(৫৫),মারফত আলীর ছেলে রবিন(২৫),নুর ইসলামের ছেলে ইমু(২৮),আবু ওহাবের ছেলে হৃদয়(২৮),আব্দুর রবের ছেলে বরকত(৩০) ও আমজাদের ছেলে আলামিন(৩০)। উল্লেখ্য ২০১৯এর মার্চের ২২তারিখ একটি বিচারে রামারবাগ মসজিদ সংলগ্ন রাস্তায় বাদী, ভিকটিম ও সাক্ষীরা আসকে আসামীরা রামদা,চাপাতি,লোহার পাইপ,হকিস্টীক সহ লাঠি দিয়ে হামলা করে আঃগফুরের নির্দেশে।এর ফলে দেলোয়ারের মাথায় কুপ দেয়।এবং উপস্থিত সকল বাদী ও সাক্ষীদের মারধর করে।কাঠেরপুলের মোঃতালেব আলীর ছেলে মোঃজুয়েল বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি মামলা করে।আসামীরা মামলায় জামিন পেয়ে মুক্ত থাকার পর ৪নভেম্বর পুনরায় আদালতে আত্নসম্পন করে জামিনের জন্য আবেদন করলে বিচারক জামিন নামঞ্জুর করে ৭জন আসামীকে কারাগারে প্রেরনের নির্দেশ দেন।

 

নারায়ণগঞ্জ কথা এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Shares
error: Alert: Content is protected !!