কিশোরী গণধর্ষণের দুইজন  প্রধান আসামীসহ  টাঙ্গাইল থেকে গ্রেফতার

10

নারায়ণগঞ্জ কথা :নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় কিশোরী গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামীসহ দু’জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১ সদস্যরা। বুধবার ভোরে টাঙ্গাইলের এলেকা থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো- নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার দাাপা ইদ্রাকপুরের মৃত এসএম সামাদের ছেলে মোঃ আব্দুল কাদের শান্ত (১৯) ও একই এলাকার মৃত মিজানের ছেলে আবু বক্কর সিদ্দিক ওরফে শুভ (২৩)।

এ বিষয়ে ৪ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুরে র‌্যাব-১১’র অধিনায়ক (সিও) লেঃ কর্ণেল কাজী শমসের উদ্দিন র‌্যাব-১১’র ব্যাটেলিয়ন সদর দফতরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

গত ২৮ আগষ্ট রাতে এক কিশোরী (১৫) সরিষার তেল কিনতে দোকানে গেলে গণধর্ষণের শিকার হয়। এ ঘটনায় ২৯ আগষ্ট ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে ফতুল্লা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়।

বুধবার দুপুরে র‌্যাব-১১’র অধিনায়ক (সিও) লেঃ কর্ণেল কাজী শমসের উদ্দিন জানান, গণধর্ষণের শিকার কিশোরী তার পরিবারের সাথে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার রেলষ্টেশন এলাকায় বসবাস করছে। ওই কিশোরীর মা একটি প্লাস্টিক কারখানায় কাজ করে। গত ২৮ আগস্ট রাত সাড়ে ৮টায় ওই কিশোরী সরিষার তেল কিনতে একা তার বাসার পাশের মুদি দোকানে যায়। ঐ সময় ওই কিশোরীর পূর্ব পরিচিত মোঃ রাজন তাকে জোরপূর্বক ফতুল্লা রেলষ্টেশনের জোড়াপোল বালুর মাঠে নির্জন ও অন্ধকার স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে রাজন, শুভ, শান্ত ও অজ্ঞাত আরো ২/৩ জন মিলে ওই কিশোরীকে পালাক্রমে গণধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর এ ব্যাপারে কাউকে কিছু না বলার জন্য ওই কিশোরীকে হুমকি দিয়ে বাড়ী পাঠিয়ে দেয়। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে র‌্যাব-১১’র একটি বিশেষ দল ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদঘাটন, জড়িত আসামীদের সনাক্ত করেন ও তাদের গতিবিধি নজরদারী করাসহ উক্ত ঘটনায় আসামীদের গ্রেফতার করার লক্ষ্যে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায়। ফলে বুধবার ভোরে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা এলাকায় অভিযান চালিয়ে গণধর্ষণ মামলার এজাহার নামীয় প্রধান আসামী মোঃ আব্দুল কাদের শান্ত ও অপর সহযোগী আবু বক্কর সিদ্দিক ওরফে শুভকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের ফত্ল্লুা থানায় আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে তিনি জানান।