শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০

ঢেউটিন ও ঐচ্ছিক তহবিলের টাকা অসহায়দের হাতে তুলে দিলেন সেলিম ওসমান

 

নারায়ণগঞ্জ কথা ডটকম :  জাতীয় সংসদ থেকে প্রাপ্ত ঐচ্ছিক তহবিলের ৫ লাখ টাকা অসহায় মানুষের মাঝে বিতরন করেছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান। মোট ৫০ জন অসহায় মানুষের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে ঐচ্ছিক তহবিলের টাকা বিতরনের পাশাপাশি ত্রান ও দুর্যোগ মন্ত্রনালয় থেকে বরাদ্দ প্রাপ্ত ২৪বান ঢেউটিন ও নগদ ৬ হাজার টাকার চেক প্রদান করা হয়েছে। মোট ১২জনকে সরকার প্রদত্ত ওই ঢেউটিন ও নগদ টাকা তুলে দেওয়া হয়।

বৃস্পতিবার ২৫ জুলাই বিকেল ৩টায় বন্দর উপজেলা কমপ্লেক্সের অডিটরিয়ামে চেক বিতরন অনুষ্ঠিত হয়। বন্দর উপজেলার নির্বার্হী কর্মকর্তা(ইউএনও) এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য অসহায়দের হাতে চেক তুলে দিয়েছেন।

এ সময় এমপি সেলিম ওসমান বলেন, ১০ হাজার টাকা অনেকে কাছে সামান্য মনে হতে পারে। কিন্তু সবকিছু ক্ষুদ্র থেকেই শুরু হয়। আমি নিজেও খুব ক্ষুদ্র থেকে শুরু করেছি। আমার প্রথম সন্তান হওয়ার পর তাঁর খুব শরীর খারাপ হয়ে ছিল। তখন একজন তাকে ছাগলের দুধ খাওনোর পরামর্শ দেন। তখন আমি একটি ছাগল কিনে হীরা মহলের বাড়িতে পালতে শুরু করি। একটা সময় ওই একটা ছাগল থেকে দিনে দিনে আমার ছাগলের সংখ্যা দাড়ায় ৬৫তে। শহরের বাড়িতে ছাগল পালা খুবই কষ্টকর ছিল। তখন আমি সেই ৬৫টি ছাগল বিক্রি করে দিয়ে সেই টাকা দিয়ে ৪টি গরু কিনে আনি। সেই গরুর দুধ আমি এলাকার মানুষের কাছেই বিক্রি করতাম। একটা সময় ছাগলের মত আমার গরুর সংখ্যাও বাড়তে শুরু করে। এভাবেই আজকে আমি ৬০০ গরু ৩০০ ছাগল, ২৫০ উন্নত জাতের ভেড়া, ২ লাখ ৫০ হাজার মাছের মালিক। এই বছর কোরবানী ঈদে আমি প্রায় ৪ কোটি টাকার গরু বিক্রি করতে পারবো বলে আশাবাদী। আর এই কৃষিকাজ থেকে অর্জিত আয় দিয়েই আমি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনুদান দিয়ে থাকি। আমাকে আপনারা যাই মনে করেন না কেন আমি সেলিম ওসমান একজন কৃষক এটাই আমার সব থেকে বড় পরিচয়।

আপনারও ক্ষুদ্র থেকে শুরু করবেন দেখবেন সাফল্য আসবেই। এই টাকাটা দিয়ে আপনারা বাড়িতে হাঁস মুরগি কিনে পালন করতে পারেন। দুটি ছাগল কিনে পালন করতে পারেন। যাদের সমস্যা হবে বা শেখার প্রয়োজন হলে আপনারা আমার সাথে যোগাযোগ করবেন আমি আপনাদের যথাসাধ্য সহযোগীতা করবো।

বন্দর উপজেলার নির্বার্হী কর্মকর্তা পিন্টু বেপারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে চেক বিতরন অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বন্দর উপজেলার চেয়ারম্যান এম.এ রশিদ, জেলা জাতীয় পার্র্টির আহবায়ক আবুল জাহের, বন্দর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানু, নারী ভাইস চেয়ারম্যান শান্তা, ২১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হান্নান সরকার, ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর দুলাল প্রধান, ২৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফজাল হোসেন, মুছাপুর ইউপি চেয়ারম্যান মাকসুদ হোসেন, ধামগড় ইউপি চেয়ারম্যান মাসুম আহাম্মেদ, বন্দর ইউপি চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন, কলাগাছিয়া ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার প্রধান প্রমুখ। t

 

নারায়ণগঞ্জ কথা এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Shares
error: Alert: Content is protected !!