Home আইন-আদালত হকার মার্কেটে যেন প্রকৃত হকারই বসতে পারে : এসপি হারুন

হকার মার্কেটে যেন প্রকৃত হকারই বসতে পারে : এসপি হারুন

হকার মার্কেটে যেন প্রকৃত হকারই বসতে পারে : এসপি হারুন

নারায়ণগঞ্জ কথা ডটকম :  আমরা চাই হকাররা যেন নিজ নিজ জায়গায় বসতে পারে। হকাররা আমাদের সমাজেরই মানুষ, আমরা মাননীয় মেয়রকে অনুরোধ করবো প্রকৃত হকাররা যেন হকার্স মার্কেটে বসতে পারে সে বিষয়ে একটা নিয়ম করে দেয়ার জন্য।

(২৩ জুলাই) মঙ্গলবার  দুপুর  ১২টায় চাষাড়াস্থ হকার্স মার্কেটের সামনে অনুষ্ঠিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মো: হারুন অর রশীদ, বিপিএম (বার), পিপিএম (বার)।

তিনি বলেন, এখানে ৬৫০টি দোকান মাননীয় মেয়র বরাদ্দ দিয়েছিলেন কিন্তু আমরা দেখলাম কোনো হকার দোকানে বসে না। ৬৫০ জন যদি দোকানে বসতো তাহলে ৬৫০ জন হকার কমতো কিন্তু এই ৬৫০ জনই দোকান বিক্রি করে দিয়ে আবার ফুটপাতে বসছে। তাহলে আপনারা দোকান নিলেন কেন? এই দোকানগুলো বিক্রি যোগ্য না।

এসময় হকার মার্কেটে যেন প্রকৃত হকারই বসতে পারে সে বিষয়ে ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য নাসিক মেয়র সেলিনা হায়ৎ আইভীর নিকট অনুরোধ করেন এসপি।

তিনি যেন এই নিয়মটা করে দেন, যেন শুধু হকাররাই হকার মার্কেটে বসতে পারে। প্রকৃত হকারই হকার মার্কেটে বসবে। এবং বাকি হকরদের জন্য অন্যকোনো ব্যবস্থা করবেন। প্রয়োজন হলে একটি বহুতল ভবন করে সেখানে তাদের বসার ব্যবস্থা করে দেবেন তিনি। হকাররা ব্যাবসা করবে, কাজ করে খাবে সেটা আমরাও চাই। যারা যারা হকার্স মার্কেটে দোকান বরাদ্দ পেয়েছিলো তারাই এখানে বসতে পারবে কোন সাধারন মানুষ এখানে দোকান কিনতে পারবেনা।

এসপি হারুন বলেন, আপনারা জানেন সাইনবোর্ড থেকে চাষাড়া হয়ে বঙ্গবন্ধু সড়ক, ১নং রেল গেইট, ২নং রেল গেইট, সিটি করপোরেশন এই জায়গাগুলোতে নারায়ণগঞ্জের সকল মানুষ, বিশেষ করে লক্ষ লক্ষ মানুষ চলাচল করে। বঙ্গবন্ধু সড়কটি একটি ঐতিহাসিক সড়ক। ঐ সড়কের মধ্যে যদি মানুষ রাস্তায় অবৈধ গাড়ি পার্কিং করে যানজট করে রাখে, রাস্তার মধ্যে যদি হকাররা মাল রেখে বিক্রী করে তাহলে সে রাস্তাটি আর চলাচলের উপযোগী থাকেনা। যে রাস্তাটি আমাদের পাড় হতে লাগে পাঁচ থেকে সাত মিনিট সেটি পাড় হতে লাগে আধা ঘন্টা থেকে এক ঘন্টা। আমাদের জনপ্রতিনিধিরাও বলেছেন যানজটের কারনে তাদের অনেক সময় নষ্ট হয়। যেহেতু সকলেই যানজটের বিষয়টি বলেছেন সে কারনে আমরা মনে করি বঙ্গবন্ধু সড়কটি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকা দরকার।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মনিরূল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আব্দুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোহাম্মদ নূরে আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) মেহদী ইমরান সিদ্দিকী, সহকারী পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) সালেহউদ্দিন আহমেদ, ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন, সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম, জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের পরিদর্শক এনামুল হক, জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার কর্মকর্তা (ডিআইও-২) মো. সাজ্জাদ রোমন প্রমুখ।

Shares
error: Alert: Content is protected !!