নৌকার প্রার্থী ডাঃ সেলিনা হায়াৎ আইভীকে নৌকা মার্কায় বিজয়ী করার লক্ষ্যেমতবিনিময় সভা

নারায়ণগঞ্জ কথা :নারায়ণগঞ্জমহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্যোগে নৌকার প্রার্থী ডাঃ সেলিনা হায়াৎ আইভীকে নৌকা মার্কায় বিজয়ী করার লক্ষ্যেমতবিনিময় সভা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন এর সভাপতিত্বে।

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টায় নারায়ণগঞ্জ ২নং রেলগেট জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিতছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নির্মল রঞ্জন গুহ বলেন, ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে এ দেশ স্বাধীন হয়েছিলো আর তারই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে মাথা উচুঁ করে দাঁড়িয়েছে। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে যাকে তিনি নৌকার প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছেন আমরা সবাই তার হয়ে কাজ করে তাকে জয়যুক্ত করবো।

তিনি বলেন, আমরা যারা আওয়ামী লীগ করি সবাইকে ধর্মীয় বিশ্বাসের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি বিশ্বাস রাখতে হবে। তিনি যা বলবেন সেটাই করতে হবে। শামীম ওসমান, সেলিনা হায়াৎ আইভী কে ? তারা আমাদের দলেরই মানুষ, তারা অনুপ্রবেশকারী নয়। তারা দলের কোন ক্ষতি করবেনা, ক্ষতি তারা করবে যারা বাইরে থেকে এসে দলে প্রবেশ করেছে। মনে রাখতে হবে যদি কেউ দলীয় প্রতীক নিয়ে জয় লাভ করে তাহলে অবশ্যই তাকে জনগণের সেবা করার পাশাপাশি দলের নেতাকর্মীদেরকেও ভালোবাসতে হবে এবং তাদের জন্যে কাজ করতে হবে। মনে রাখবেন ১০টা ভালো কাজ করে একটা খারাপ কাজ করলে সেই ভালো কাজগুলো ভেস্তে যায়। যদি কোন নেতাকর্মী মুখে এক কথা বলে অন্য কাজ করে এবং এর প্রমান যদি পাওয়া যায় তাহলে তাকে বহিষ্কার করা হবে। আওযামী লীগ দলের জন্য কাজ করেনা, দেশের জন্য কাজ করে। আমার প্রতিপক্ষ তারা যারা ক্ষমতায় থাকাকালীন আমাদের উপর জুলুম নির্যাতন করেছে। অতীতের কথা ভলে যান। সকল ক্ষোভ, দুখ-কষ্ট সবকিছু ভুলে গিয়ে আগামী ১৬ জানুয়ারী নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ডাঃ সেলিনা হায়াৎ আইভীর জয় সুনিশ্চিত করতে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করুন।

প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,
বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু।

প্রধান আলোচকে বক্তব্যে সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহান বাবু বলেন, কারো কান্না, ক্ষোভ, দুঃখ-কষ্ট শোনার সময় এখন নেই। এ ব্যাপারে যদি কোন ব্যাখ্যা দেন তাহলে দলে থাকতে পারবেন না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যা বলেন সেটাই হলো আওয়ামী লীগের আইন, আর এই আইন যদি কেউ মানতে না পারেন তাহলে হেটে চলে যান। বঙ্গবন্ধু আমাদেরকে দেশ দিয়েছে আর তার কন্যা আমাদেরকে অর্থনৈতিক মুক্তি দিয়েছে। তিনি দৈনিক ১৮ ঘন্টা কাজ করেন। যদি ক্ষোভ, দুঃখ-কষ্ট থেকে থাকে তাহলে সেগুলো নিয়ে ১৬ জানুয়ারীর নির্বাচনের পর কথা হবে।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি মেজবাহ উদ্দিন সাচ্চু, কাজি শহিদুল্লাহ লিটন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোবাশ্বের হোসেন চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল সায়েম, আ.ফ.ম মাহাবুব হাসান, মেহেদী হাসান মোল্লা,নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক নিজামউদ্দিন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নাসিক ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী সাইফুদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধান, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি সাব্বির আহাম্মেদ,মানিক শেখ,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ রফিকুল ইসলাম জয়,দপ্তর সম্পাদক ইমরানুর রশীদ,সহ আইন বিষয়ক সম্পাদক সজিব মোল্লা,সমাজ কল্যান সম্পাদক এস আলম রাসেল,সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক বুলবুল আহম্মেদ, ত্রান ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক নাজমুল হোসেন,কার্যকরি সদস্য জসিম খন্দকার,আব্দুল খালেক,রফিকুল ইসলাম চান্দু,রাজিব জালাল ডানো,মোঃ নাদিম শেখ,রাকিবুল ইসলাম সুমন, আনিস,জাবেদ, রিপন,মারুফ, আবেদ, শাওন,রাকিব,মারুফ জাহান,বাবুল দেওয়ান,নোমান,আফসার সিকদার, মামুন,হাকিম,সাগর,সাকিল সহ নেতৃবৃন্দ প্রমুখ।

সর্বশেষ