খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে তৈমুর আলম খন্দকার শ্লোগানে রাজপথে

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : দীর্ঘদিন ত্যাগের সহিত দলের নেতা কর্মীদের নিয়ে খাদেলা জিয়ার মুক্তির দাবিতে পহেলা মে বিশাল মিছিল করেন চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। তারই ধারাবাহিকতায় এবারের মহান মে দিবসে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে নারায়ণগঞ্জের রাজপথে বিশাল শোডাউন করেছেন অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার।

মহান মে দিবসে সকাল থেকেই পূর্বঘোষণা অনুযায়ী নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন জায়গা থেকে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সামনে একত্রিত হতে থাকেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। এভাবে একের পর এক খন্ড খন্ড মিছিলে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সামনে বিভিন্ন জনসমাবেশে পরিণত হয়। এরপর সেখান থেকে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা বিশাল র‌্যালী নিয়ে নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্র চাষাঢ়ায় আসেন।

র‌্যালীর প্রধান স্লোগান ছিল ‘শ্রমিক দিবস দিচ্ছে ডাক দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া মুক্তি পাক’। সেই সাথে র‌্যালীতে ছিল বাদ্য বাজনা ও ব্যান্ড পার্টি সহ বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীর সম্বলিত ফেস্টুন। নেতাকর্মীরা অ্যাডভোকেট তৈমূরের ছবি সম্বলিত ফেষ্টুন নিয়ে আসলে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার সেগুলো সড়িয়ে ফেলার নির্দেশ দেন।

র‌্যালীপূর্ব সমাবেশে অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, আমাদের বক্তব্য এখানে পরিস্কার। আমরা আন্দোলনে আছি আন্দোলনে থাকবো। আমাদের প্রধান দাবি হলো দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি। এছাড়া অন্য কোন বক্তব্য শুনতে চাই না। বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের বলতে চাই, অন্য কিছু শুনতে চাই না। একমাত্র দাবি হলো খালেদা জিয়ার মুক্তি।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর শ্রমিক দলের সভাপতি এস এম আসলামের সভাপতিত্বে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন খান, মহানগর যুবদলের সভাপতি মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, জেলা ওলামাদলের সভাপতি শামসুর রহমান খান বেনু, কেন্দ্রীয় যুবদল নেতা আবুল কালাম আজাদ, জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি মোশারফ হোসেন, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাশুকুল ইসলাম রাজীব, আইনজীবী ফোরাম নেতা অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ খান ভাষানী, অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান মোল্লা, অ্যাডভোকেট সুলতান মাহমুদ, জেলা শ্রমিকদলের সাবেক সভাপতি মো: নাসির উদ্দিন, মহানগর শ্রমিকদলের সাবেক সভাপতি ফারুক হোসেন, শহর বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক নুরুল হক চৌধুরী দিপু, মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মনতাজ উদ্দিন মন্তু, সহ সভাপতি আক্তার হোসেন খোকন শাহ, জানে আলম দুলাল, বন্দর থানা যুবদলের সভাপতি আমির হোসেন, জেলা যুবদলের সহ সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আওলাদ, ফতুল্লা থানা শ্রমিক দলের সভাপতি বাবুল আহমেদ ও মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আল আমিন প্রধান সহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা ।

Shares