সিদ্ধিরগঞ্জে এতিমের সম্পদ লুটের অভিযোগ চাচার বিরুদ্ধে


সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে নাসিক ১ নং ওয়ার্ডের পাইনাদী পূর্ব পাড়া এলাকায় এতিমের সম্পদ আত্মসাৎ ও মারধর করে দখল নেওয়ার চেষ্টা ও মিথ্যা মামলায় ও হত্যা করে গুম করার হুমকি দেয় এতিম অন্তর(১২)ও তার মা শেফালি বেগম কে তার আপন চাচা আমির হোসেন গংদের বিরুদ্ধে আভিযোগ উঠেছে।

পাইনাদী পূর্ব পাড়ার স্থায়ী বাসিন্দা আসকর আলী পাচ ছেলে/মেয়েদের বড় ছেলে আকতার হোসেন ২০১২ সালে মারা গেলে বারো বছরের এতিম ছেলে অন্তর রেখে যান। সেই সময় বেচে ছিল আসকর আলী তখন তার মোট সম্পত্তির ছিল সাড়ে তের শতাশং সেই সম্পত্তি থেকে তার ছোট ছেলে আমির হোসেন কে চার শতাংশ লিখে দেন আসকর আলী বাকী থাকে নয় শতাশং সেখান থেকে এক শতাশং জায়গা বিক্রি করে দেয় আসকর আলী ও তার ছোট ছেলে আমির হেসেন।

আসকর আলী মারা যাওয়ার পর তার ছোট ছেলে আমির হোসেন এতো চালাক যে বাকী আট শতাশং জায়গা কোন ভাই বোনদেরকে না দিয়ে নিজেই পুরো জায়গা ভোগ দখল আসছে। আসকর আলীর বড় ছেলে আকতার হোসেন ১শতাশং ৭৫ পয়েন্ট জায়গায় বসবাস করার জন্য ঘর নির্মাণ করে করে থাকে। আকতার হোসেন মারা গোলে ঐই ঘরে বসবাস করে আকতার হোসেনের এতিম ছেলে বারো বছরের অন্তর ও তার মা সেফালি বেগম।এতিম অন্তরের মা সেফালি বেগম গার্মেন্টস কাজ করে কোন রকমের ভাবে জীবন যাপন করে আসছে। আমির হোসেনের পাশে এতিম অন্তরের ঘর হওয়ায় প্রতিনিয়ত অশোভন আচারন হুমকি ভয় ভীতি দেখিয়ে আসছে আমির হোসেন গাংরা।

এতিম অন্তর কে জোর করে তার বসত বাড়ী থেকে আমির গংরা উৎখাত করে দিবি বলে হুমকি দিয়ে আসছে। চাচা আমির হোসেনের ও খাদিজা আকতার লিজা,বাদল,নার্গিস, ইব্রাহিম গংদের অত্যাচার থেকে রেহাই পেতে এতিম ছেলে অন্তর কে বাচানোর জন্য মা শেফালি বেগম বাদী হয়ে কোটের পিটিশন মামালা যাহার নং ৫০৮/২১ হয় যা এই জায়গায় ১৪৫ ধারায় জারী কটা হয়। আর এই ১৪৫ ধারার কারনে (৯সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার কোট থেকে নোটিশ আসে।

কোট থেকে নোটিশ আসার পরে মামলার সাক্ষীকে (৯সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার রাত ৭.৩০ মিনিটের সময় নাজমা আকতার উপরে হামলা করে আমির হোসেন ও খাদিজা আকতার লিজা,বাদল,নার্গিস,ইব্রাহিম গংরা। দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র বাশ,রড,লাঠি,ইট দিয়া মামলার সাক্ষী নাজমা আকতার শরীলের বিভিন্ন অঙ্গ ক্ষত চিহ্ন হয়।আমির গংদের উদেশ্যা ছিল মামলার সাক্ষী নাজমা আকতারকে হত্যা করার।গুরুতর আহত হয়ে নারায়ণগঞ্জ ভিক্টরিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা মামলার সাক্ষী নাজমা আকতার।


রোকেয়া নামে এক জন প্রত্যক্ষদর্শী জনান নাজমা আকতার উপরে আমির,খাদিজা,বাদল,ইব্রাহিম,নার্গিস হামলা করে এবং তাদের ঘরের ভিতরে গিয়া টাকা,স্বর্ণ মালামাল লুট করে নিয়া যায়।


এই ব্যাপারে নাজমা আকতারের ছেলে বাদী হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আভিযোগ করেন যে আমির গংরা আমার মা কে হত্যার করা উদ্দেশ্যে পূর্ব পরিকল্পিত হামলা করে। এই হামলা কারী আমির গংদের দৃষ্টান্ত মূলক বিচার দাবী জানাচ্ছি।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ওসি মশিউর রহমান জানান এ বিষয়ে কোন আভিযোগ হলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সর্বশেষ