শনিবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০

বৃষ্টি রানী হত্যার বিচারের দাবিতে মহিলা পরিষদের মানব বন্ধন

 

প্রেস রেলিজ : বৃষ্টি রানী চৌধুরীর হত্যার দ্রুত বিচার ও দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলার মানববন্ধনে বক্তরা বলেন, নারায়ণগঞ্জসহ সারা দেশে আজ হত্যা-ধর্ষণসহ নানারকম লোমহর্ষক নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা বেড়েই চলছে। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে এসব থামানোর ক্ষমতা যেনো কারো নেই।

বুধবার ২৪ এপ্রিল বিকাল ৫টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাব অঙ্গনে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের আয়োজনে বৃষ্টি হত্যার প্রতিবাদে বক্তরা বিচারের দাবি রাখেন।

বক্তারা দ্রুত বিচারের দাবিতে বলেন, বিশেষ ট্রাইব্যুনাল করে যদি একটি হত্যা বা ধর্ষণ মামলার দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিচার হতো তাহলে আজ এইভাবে নুসরাত -বৃষ্টিদের প্রাণ দিতে হতো না। ‘ অপরাধ করে নানাভাবে প্রভাব খাটিয়ে পার পেয়ে যাচ্ছে।
প্রশাসন, আদালত, আইনজীবীদের মধ্যে কিছু ব্যক্তি এবং পেশাধর রাজনীতিবিদ যারা অপরাধের ছার পেতে সহযোগিতা করেন, আপনাদের ঘরে কি মা – বোন কন্যা নেই ? ঐসব মুখগুলোর একবার ভাবুন, তারাও আপনাদের এই সব কর্মকান্ড ঘৃণা করে? দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিন, দেশের সুশাসনের জন্য কাজ করুণ,সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে আসুন।

বক্তারা আরো বলেন, নুসরাত হত্যার রেশ কাটতে না কাটতে বৃষ্টি হত্যা আর কত ? বৃষ্টির বাবা – মা, ভাইয়ের দিকে তাকানো যায় না। সামান্য কারণে শশুর -শ্বাশুড়ী – স্বামী নানাস মিলে মেয়েটিকে হত্যা করল। আবার আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নুসরাত হত্যার বিষয়ে পদক্ষেপ নিয়েছেন, আশাকরি দ্রুত বিচার হবে।

বক্তারা প্রধানমন্ত্রী হস্তক্ষেপ কামনায় করে বলেন, আপনি বিশেষ ট্রাইবুনাল গঠনের নির্দেশ প্রদান করুন, যাতে এক মাসের মধ্যে নারী নির্যাতনকারী খুনী – ধর্ষকদের ফাঁসি কার্যকর হয়। পুলিশ প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই যে, তাৎক্ষণিকভাবে আসামী বৃষ্টির স্বামী সুদীপ রায় ও শ্বশুড় সুদীপ রায় ও সুভাষ চন্দ্র রায় কে আটক করে হাজতে পাঠিয়েছে। আপনারাদের এই ভূমিকা আধটু রাখুন। বৃষ্টি রানী চৌধুরী হত্যার দ্রুত বিচার ও দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি কার্যকর করা হোক যাতে সমাজে আর কোন নারী এমন নির্মমতার শিকার না হয়।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট হাসিনা পারভীনের সভাপতিত্বে মানব বন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন , রীনা আহমেদ, সহ সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ ও পাঠাগার সম্পাদক, লিগ্যাল এইড সম্পাদক সাহানারা বেগম ও আন্দোলন সম্পাদক শোভা সাহা। সামাজিক প্রতিরোধ কমিটি পক্ষে খেলাঘর আসরের সভাপতি রথীন চক্রবর্তী, সমমনার সভাপতি দুলাল সাহা, নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক শিবনাথ চক্রবর্তী, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের ভাবানী শংকর রায়, উন্মেষ শিল্পী শিল্পী গোষ্ঠীর সাবেক সভাপতি প্রদীপ ঘোষ বাবু, উদাচী শিল্পী গোষ্ঠীর পিন্টু সাহা, বাসদের সমন্বয় নিখিল দাস এবং ন্যাপ এর সভাপতি আওলাদ হোসেন প্রমুখ নেত্রীবর্গ।

 

নারায়ণগঞ্জ কথা এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Shares
error: Alert: Content is protected !!