জেলা প্রবাসীলীগ এর উদ্যোগে স্বাধীনতার( ৫০ বছর) সুবর্নজয়ন্তী ও ভাষা সৈনিক নাগিনা জোহার স্বরনে দোয়া

 

নারায়ণগঞ্জ কথা : জেলা প্রবাসীলীগ এর উদ্যোগে স্বাধীনতার( ৫০ বছর) সুবর্নজয়ন্তী ও ভাষা সৈনিক নাগিনা জোহার স্বরনে দোয়া মাহফিল এবং মুক্তিযুদ্ধা সহ বিশেষ ব্যাক্তিদের সম্মাননা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।১৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু এর সভাপতিত্বে।

শনিবার (২৭ মার্চ) বিকেল ৫ টায় পাইকপাড়া আদর্শ বালিকা স্কুল  ও কলেজ মাঠে এ দোয়া মাহফিল এবং মুক্তিযুদ্ধা সহ বিশেষ ব্যাক্তিদের সম্মাননা দেয়া হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,নারায়নগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড,খোকন সাহা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যেএ্যাড,খোকন সাহাবলেন, নতুন প্রজন্ম কে ইতিহাস জানতে হবে। আর তা না হলে বাংলাদেশ কে জানা হবে না। সত্য কথা বলতে গেলে অন্ন্য কিছু আসেনা সে খানে ইতিহাসবিদদের কথা চলে আসে। এ নগরীর ৫০ বছরের ইতিহাস আমি জানি। আমি জানি শহিদ হওয়ার আগ পর্যন্ত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আত্মনিয়োগ করেছিলেন দেশ গঠনের জন্য। আমি জানি ১৯৭২ থেকে ৭৫ পর্যন্ত কারা এই শহরে তালা ভেঙে  লুটতারাজ করে বঙ্গবন্ধুর সরকার কে প্রশ্নবিদ্ধ করিয়েছে।

তিনি বলেন কয়েকদিন আগে এক পত্রিকায় লিখেছে খোকন কবে বলবে ৫০ বছরের ইতিহাস। অথচ আমি সেই পত্রিকার সম্পাদকের  বাবার বয়সী। আমার নামের পিছনেতো একটা শব্দ আছে। খোকন সাহা বা খোকন বাবু। একটুতো বলা যায় এগুলো। এতবড় অশালীন সাংবাদিকতা হতে পারে তা আমি জানিনা।এ বিষয়গুলো আমি বল্লাম আগামীকালও লিখবেন।

তিনি আরো বলেন আমি পরিস্কার করে বলতে চাই মার্চের পর আমি বলা শুরু করবো।  এই দেশ এ এলাকায় কারা ব্ঙ্গবন্ধুর রাজনিতি প্রতিষ্ঠিত করেছে এবং বংশানুক্রমে কিভাবে কারা কলুষিত করেছে  এ বিষয়ে আমি বলবো। তিনি নাগিনাজোহা প্রসঙ্গে বলেনএই মহিয়শি নাড়ী কি ভাবে নারীদের জাগরন ঘটিয়ছে তা জানতে হবে। তিনি খুব সুন্দর কবিতা লিখতেন এবং পাশা পাশি জোহা সাহেবকেও রাজনিতিতে সহোযগিতা করতেন।

তিনি আরও বলেন আমার একটা ইচ্ছা শহিদদের নামে একটি লাইব্রেরি করার যদি জায়গা বা ঘর দিয়ে আমাকে কেউ সহোযগিতা করেন। কারন বাংলাদেশ আমার জানামতে ভাষা শহিদদের কোনো লাইব্রেরি নেই। আজকে মুক্তিযুদ্ধাদের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাজ করে যাচ্ছেন যা আর কোনো সরকার করেনি। বঙ্গবন্ধু দিলেন আমাদের স্বাধীনতা যখন দেশের উন্নয়নের জন্য করবেন, ঠিক তখনই তাকে হত্যা করা হলো। বাবার স্বপ্ন পুরনের জন্য দেশকে উন্নত দেশে রুপান্তরিত করার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করবেন উনি যতদিব বেচে থাকবেন উন্নয়ন হতেই থাকবে। আর এই এলাকায় আবারও বাবু নির্বাচিত হবে আমি তার পাশে থাকবো।

সভাপতির বক্তব্যে কাউন্সিলার বাবু বলেন, আমি স্ত্রী সন্তান আত্বিয়স্বজনদের সময় না দিয়ে এলাকার সাধারন মানুষের পাশে থেকে সঠিক সেবা দিয়ে যাচ্ছি। কারন আমি নিজেকে গর্বোভৎ করি আমার মতো মানুষ কে তারা কাউন্সিলর বানিয়েছে। আমি যতদিন বেচে থাকবো মানুষের সেবা করে যাবো। করোনা কালিন সময়ে মহান আল্লাহ পাক আমেকে উছিলা হিসবে আপনাদের সেবা করার সুযোগ করে দিয়েছে।

এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন হাবিবুর রহমান,জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ সাফায়েত আলম সানী, জেলা মহিলা আওয়ামী আইনজীবীর সভানেত্রী এ্যাড, সেলিনা ইয়াসমিন, জেলা প্রবাসীলীগের সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ হাসান,সিনিয়র সহ সভাপতি মোঃ সামসুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মাসুদ হোসেন সহ এলাকার গন্যমান্ন্য ব্যাক্তি বর্গ ও সমাজ সেবকগন। আলোচনা সভার পর মুক্তিযুদ্ধা ও সম্মানিত ব্যাক্তিদের ক্রেষ্ট প্রদান করে সম্মাননা  দেন। পরে সকল অতিথিদের ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর  আব্দুল করিম বাবু আপ্যায়িত করেন।

 

নারায়ণগঞ্জ কথা এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Shares