ট্রাক মালিকরা চাঁদাবাজি হয়রানির শিকার হচ্ছে – রুস্তম আলী

 

নারায়নগঞ্জ কথাঃ বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির কার্যকরী সভাপতি মাে. রুস্তম আলী খান বলেন, আমরা যারা চট্টগ্রাম থেকে ট্রাকে করে স্ক্র্যাপ পরিবহন করে থাকি, তারা কিছু অসাধু নামধারী ট্রান্সপাের্ট এজেন্ট, মিল মালিক এবং ফরিয়া দালাল দ্বারা কমিশনের নামে গাড়ি প্রতি সাত থেকে আট হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদাবাজি এবং বিভিন্ন হয়রানির সম্মুখীন হচ্ছি। আর এই হয়রানির মাধ্যমে মালিকদের বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় যাদের একটি বা দুটি গাড়ি তাদের সংসার চালাতে খুব কষ্ট হয়ে যায় আর এই একটি-দুটি ঘরেই তাদের জীবনের সর্বস্ব কেড়ে নেয়। তাই এ নিয়ে আমাদের সকলের একসাথে বসে এই সমস্যাগুলো সমাধান করতে হবে।

(২০ শে মার্চ) শনিবার বিকেলে ফতুল্লার আলীগঞ্জ লেবার হলে নারায়ণগঞ্জ জেলা ট্রাক মালিক সমন্বয় পরিষদের আয়ােজনে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি পন্য পরিবহন বিভাগের উদ্যোগে স্ক্র্যাপ পরিবহন মালিক সমিতির ১০ দফা প্রস্তাবনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বিশেষ আলােচনা সভা এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, এদের থেকে পরিত্রাণ পেতে আমাদের ট্রাক মালিকদের ঐক্যবদ্ধ হওয়া ছাড়া কোনাে উপায় নাই। আমরা নারায়ণগঞ্জ জেলা ট্রাক মালিক সমন্বয় পরিষদ এর উদ্যোগগুলাের সাথে একমত হয়ে আমরা সমস্যাগুলি সমাধানের পথে এগিয়ে যাবাে।

জেলা ট্রাক মালিক সমন্বয় পরিষদের আহবায়ক হাজী আব্বাস উদ্দিন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরাে উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কাউসার আহম্মেদ পলাশ, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির পণ্য পরিবহন ডিভিশনের সদস্য সচিব আব্দুল মান্নান, বাংলাদেশ ট্রাক কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি হাজী তােফাজ্জল হােসেন। মজুমদার, জেলা ট্রাক কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতির সভাপতি মতি উল্লাহ মিন্টু, আলীগঞ্জ শাখার সভাপতি হাজী মাে. আব্দুল রশিদ ও জেলা ট্রাক মালিক সমন্বয় পরিষদের সদস্য মােয়াজ্জেম হােসেন প্রমুখ।

 

নারায়ণগঞ্জ কথা এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Shares