শুক্রবার, মার্চ ৫, ২০২১

ঘোষ বাড়ীর স্বরস্বতী পূজার গৌরব ও ঐতিহ্যের ১ যুগে পদার্পন

 

নারায়নগঞ্জ কথা : নারায়নগঞ্জে নগর খানপুরে  ঘোষ বাড়ির স্বরস্বতী পূজার ১ যুগে পদার্পনে বিভিন্ন আয়োজনের মধ্যে দিয়ে এই পূজা উদযাপন করা হয়।  হাজী মোঃমঞ্জুর হোসেন এর সভাপতিত্বে ।

মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারী) দুপুর ১ টায়  নগর খানপুরে  ঘোষ বাড়িতে এ  স্বরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শ্রী নির্মল রঞ্জন গুহ ।

এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শ্রী নির্মল রঞ্জন গুহ বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার কন্যা জননেত্রী  শেখ হাসিনা এই বাংলাদেশকে  একটি অসাম্প্রদায়িক দেশ হিসেবে গড়ে তুলেছেন। আজ জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য আমি বাংলাদেশ সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হয়েছি। কিন্ত দুঃখের বিষয় মুক্তিযুদ্ধের ৫০ বছর পেরিয়ে গেলেও এখনো এখনো সংখ্যালঘুদের ওপর মামলা – হামলার মতো ঘটনা ঘটে। এখানেও একটি জায়গায় শুনতেছি দেবত্তর জমি দখল করা হয়েছে যা  সত্যিই খুব দুঃখজনক ব্যাপার। অনেক ত্যাগের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি মহান স্বাধীনতা এখন আমরা বাংলাদেশী সেবে পরিচিত পাকিস্তান নয়। বঙ্গবন্ধুর ডাকেই সেদিন পাক হানাদার বাহিনীর বিরূদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল বাংলার দামাল ছেলেরা। বিশেষ করে আরেকটি কথা বলতে চাই আমরা যেন নিজেদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদে না জড়াই তাহলে অন্য একটি দল কথা বলার সুযোগ পায়। আমরা শুধু তাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেব যারা স্বাধীনতাবিরোধী জামাত শিবির। আমাদের সকলের মিলেমিশে একসাথে কাজ করে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।

সম্মানিত অতিথি বক্তব্যে শিপন সরকার বলেন,এই বাংলাদেশের সবাই জানেন রাজা লক্ষীনারায়ন একটি মন্দির ও দিঘী স্থাপন করেছেন যা একটি দেবত্তর  সম্পত্তি এই দিঘিতে পূজার সামুর কি দ্রুত করার উদ্দেশ্যে একটি বিশাল দীঘি খনন করা হয়েছে যার আয়তন প্রায় সাড়ে ৩০০ একর। এরকম একটা দেবত্তর সম্পত্তি কে একটা প্রভাবশালী মহল মেয়রের   আত্মীয়রা দখল করে রেখেছে জাল দলিলের মাধ্যমে সেটা মামলা বিদ্যমান। আপনারা জানেন আমরা ১১ নভেম্বর এই লক্ষ্যে একটা মানববন্ধন করি দ্বিতীয় ডিসেম্বর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রতিবাদ সমাবেশ করি সে প্রতিবাদ সমাবেশে আজকের স্বেচ্ছাসেবকলীগের জুয়েল হোসেন সহ আমাদের না’গঞ্জের আওয়ামী লীগের বিপ্লবী সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মোঃ বাদল এবং নারায়ণগঞ্জ এর মহানগর আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট খোকন সাহা স্বেচ্ছাসেবক লীগ যুবলীগ ছাত্রলীগ সকলেই তারা আমাদের এই আন্দোলন সংগতি প্রকাশ করেছেন । আপনারা জানেন পূজা উদযাপন পরিষদ করি এটা কিন্তু আমরা শখে করিনা আমাদের পূজা উদযাপন পরিষদ বা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ এর দরকার টা কি দরকারটাই জন্যই যে লক্ষ্যে অর্থাৎ আমরা যদি বলি বাঙালি জাতির বনিয়াত রচিত হয়েছে এই ফেব্রুয়ারি ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমে একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা শুরুতে এমনি এমনি আসেনি রক্তের বিনিময় তারপর ৫৪এর আন্দোলন ৬৬এর আন্দোলন ৬ দফা আন্দোলন ঊনসত্তরের গণপচার ৭০এর নির্বাচন এবং একাত্তরের সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ আমরা কি কোথাও কম ছিলাম আমাদের ভূমিকা কি খাটো ছিল আমাদের ভূমিকা খাটো ছিল না কিন্তু দুঃখের বিষয় দেশ স্বাধীনতার পরে আমাদের শ্রেষ্ঠ মহানায়ক আমরা হারিয়েছি, আর দেবোত্তর সম্পত্তি যারা জাল দলিলের মাধ্যমে দখল করে আছে তাদের বিরুদ্ধে আমরা  ব্যবস্থা নিয়েছি। আপনারা অনেকে মনে করেন যে এই পূজা উদযাপন ও হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ কমিটি প্রয়োজন টা কি প্রয়োজনটা হলো এই আপনাদের অধিকারগুলো আপনি আদায় করবেন রাষ্ট্রকে বলবেন যারা প্রকৃত রাজনীতি করে যেমন স্বেচ্ছাসেবক লীগ, যুবলীগ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, তারা কিন্তু আমাদের সহযোগী শক্তি অর্থাৎ স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি এবং তাদেরকে নিয়েই কিন্তু আমরা আন্দোলন করি আমরা এ সময় মনে করি যারা আমাদের আমি লীগের নেতাকর্মী সাজনুর, নিয়াজুল, জুয়েল, শাহ নিজাম এমনকি অ্যাডভোকেট খোকন সাহার নামেও আইসিটি একটি মামলা হয়েছে অর্থাৎ যিনি এই নারায়ণগঞ্জে ২৫ বছর যাবত অনেক সুনামের সহিত মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব পালন করছেন। উনি শুধু হিন্দু-বৌদ্ধ নন উনি আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি নারায়ণগঞ্জ মহানগরের তাকেও সে মামলা দিয়েছে আরে মামলা তো দিবে আমাদের নামে আমরা পূজা উদযাপন পরিষদ করি এ আন্দোলন আমরা করেছি আমরা চাই আপনি আমাদের বিরুদ্ধে মামলা দেন কিন্তু আপনি আমাদের নামে মামলা না দিয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের নামে মামলা দিচ্ছেন তার মানে কি আপনি আওয়ামীলীগ এর সিনিয়র সহ-সভাপতি হয়ে নারায়ণগঞ্জ এর  আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নামে আপনি মামলা দিচ্ছেন আপনার অবস্থান পরিষ্কার করেন আপনার পরিবার পতিক এই সম্পত্তি দখল এবং এইযে সম্প্রতি দখল করে রাখছেন আমি কেন্দ্রীয় নেতার দৃষ্টি আকর্ষণ করবো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আপনার মাধ্যমে এই স্বেচ্ছাসেবক লীগ এর মাধ্যমে নির্মলদা আপনার মাধ্যমে আমরা আমার নাম এতিম কাছে আপনি মেসেজটা পৌঁছে দিবেন যারা আওয়ামীলীগ করবে  আমরা কিন্তু নৌকার বাইরে না এবং তারা নৌকা মার্কা নিয়ে ভোট নিবে আবার দেবোত্তর সম্পত্তি দখল করবে খাবে এটা নারায়ণগঞ্জের আমজনতা সহ্য করে নেবে না এবং তাদের ব্যাপারে কেন্দ্র কি সিদ্ধান্ত নেয় এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সত্য জিনিসটা স্পষ্ট হয় এবং ধরে তোলা হয় সে বিষয়ে আপনাদের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সহ – সভাপতি শ্রীমতি সৃতিকণা বিশ্বাস,বাংলাদেশ পুজা উদযাপন পরিষদের নারায়নগঞ্জ জেলার সাধারন সম্পাদক  শ্রী শিখন সরকার শিপন,নারায়নগঞ্জ মহানগর  হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারন সম্পাদক শ্রী নিমাই দে,মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন,মহিলা নেত্রী উর্মী ডালি
প্রধান উপদেস্টা নাসিক ১১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ জমসের আলী ঝন্টু। 

বিশেষ  অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ পুজা উদযাপন পরিষদের সাধারন সম্পাদক শ্রী নির্মল চ্যাটার্জী,শ্রী সুব্রত পাল ভাইস চেয়ারম্যান হিন্দু ধর্মীয় কল্যান ট্রাস্ট, অধ্যাপক চন্দ্রনাথ পোদ্দার ঢাকা  বিশ্ববিদ্যালয়।

পুজা কমিটি প্রতিমা নির্দেশনায় বাপ্পি ঘোষ,আলোক সজ্জায় নয়ন ঘোষ,মঞ্চ সজ্জায় নয়ন সরকার, দপ্তর সম্পাদক হিমু দত্ত রায়, কোষাধ্যক্ষ লোকনাথ সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক সঞ্জয় ঘোষ,সার্বিক তত্বাবধায়নে অন্তু ঘোষ, 
আপ্যায়নেঃ রিদয় সরকার, অনিক সাহা চন্দন ঘোষ।
কার্যকরী সদস্যঃ শুভ ঘোষ, শিমুল ঘোষ,অয়ন ঘোষ,সুদেব ঘোষ।

 

নারায়ণগঞ্জ কথা এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Shares