শুক্রবার, মার্চ ৫, ২০২১

অসহায় গার্মেন্টস কর্মী মােঃ নয়ন ও তার স্ত্রী কে হত্যার হুমকি দেয় : মােঃ সেলিম গং

 

নারায়ণগঞ্জ কথা : নারায়ণগঞ্জ ফতুল্লা থানাধীন এলাকার বাসিন্দা অসহায় গার্মেন্টস কর্মী মােঃ নয়ন ও তার স্ত্রী কে মােঃ সেলিম,রুনা, রমিজ উদ্দিন রমু, ফরহাদ ,অনিক, বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীতি ও জীবন নাশের হুমকি প্রদান করে । এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) ফতুল্লাহ থানায়  একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়।

মােঃ নয়ন  সাংবাদিকদের বলেন, আমার স্ত্রী মােসাঃ রাশিদা আক্তার ও মােঃ সেলিম একই ফ্যাক্টরীতে চাকুরী করার সুবাদে পরিচয় হয়। অতঃপর মােঃ সেলিম আমার স্ত্রীকে বিভিন্ন ভাবে ফুসলাইয়া ও প্রলােভন দেখাইয়া আমার স্ত্রীর সহিত প্রায় সময়ই মােবাইল ফোনের মাধ্যমে এবং ইমো, ম্যাসেঞ্জারে ভিডিও কলে আমার স্ত্রীর সহিত কথাবাতা বলিত। সেই সুযােগে মােঃ সেলিম আমার স্ত্রীর ছবি তাহার মােবাইলে স্ক্রীণ শর্ট মারিয়া রাখে এবং আমার স্ত্রী সহিত তাহার কু-প্রস্তাবে রাজি না হইলে।  আমার স্ত্রীর উক্ত ছবি এডিট করিয়া সামাজিক যােগাযােগ মাধ্যমে ছাড়িয়া আমার ও আমার স্ত্রীর সম্মানহানী করিবে মর্মে জানায়। এযাবতকাল মােঃ সেলিমের ইন্দনে ও পরামর্শে রুনা, রমিজ উদ্দিন রমু, ফরহাদ  সহ অনিক,আমাকে আমার স্ত্রী নিয়া উক্ত এলাকা হইতে চলিয়া যাওয়ার বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীতি ও জীবন নাশের হুমকি প্রদান করিয়া আসিতেছে। ১নং বিবাদী আমার স্ত্রীর ছবি ইন্টারনেটে ছাড়িয়া দিবে মর্মে জানাইয়া আমার নিকট প্রায় সময়ই টাকা পয়সা দাবী দাওয়া করিত। অতঃপর গত ইং- ২১/০১/২০২১ তারিখ রাত্ অনুমান ১২.০০ ঘটিকার সময় উক্ত মােঃ সেলিমের ইন্দনে ও পরামর্শে রুনা, রমিজ উদ্দিন রমু, ফরহাদ  সহ অনিক,মাসদাইর বারইভােগস্থ ফারিহা নীট টেক্স লিঃ নামীয় আমার কর্মস্থলের সামনে আমাকে পাইয়া অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতঃ বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীতি ও জীবন নাশের হুমকি প্রদান করে এবং আরও বলে যে, তুই ও তাের স্ত্রী যদি মােঃ সেলিমের দাবী দাওয়া পূরণ না করিস তাহা হইলে মােঃ সেলিমের নিকটে থাকা তাের স্ত্রীর ছবি বিভিন্ন সামাজিক যােগাযোগ মাধ্যমে ছাড়িয়া দিয়া তােদের সামাজিক মর্যাদা ক্ষুন্ন করিব। তােদেরকে এই এলাকায় শান্তিতে থাকিতে দিব না। আর যদি এই ঘটনার বিষয়ে কোন প্রকার বাড়াবাড়ি করিস তাহা হইলে তােকে সহ তাের স্ত্রীকে যেকোন মিথ্যা মামলায় ফাসাইয়া দিব বলিয়া জানায়। উক্ত বিবাদীগণ এরূপকার্যকলাপ করিয়া আমাকে ও আমার স্ত্রীকে হয়রানী করিতেছে। ওরা যেকোন সময় আমার ও আমার স্ত্রীর আরও বড় ধরনের ক্ষতি করিতে পারে বলিয়া আমার মনে হচ্ছে। বিষয়টি আত্মীয়-স্বজনের সাথে আলােচনা করিয়া এবং স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গদেরকে অবহিত করিয়া থানায় একটি অভিযােগ দায়ের করি।

উল্লেখিত যে, মােঃ নয়ন (৩২), পিতা- মৃতঃ দৌলত খান, সাং- পশ্চিম দেওভোগ, রঙ্গিলা রােড, থানা- ফতুল্লা, জেলা- নারায়ণগঞ্জ। থানায় হাজির হইয়া বিবাদী ১। মােঃ সেলিম (২৮), পিতা- অজ্ঞাত, ২। রুনা (৩০), স্বামী- লুৎফর, ৩। রমিজ উদ্দিন রমু (৫৫), পিতা মৃতঃ সাত্তার, ৪। ফরহাদ (৩৫), পিতা- রমিজ উদ্দিন প্রমু, ৫। অনিক (২৫), পিতা- জসিম উদ্দিন প্রধান জসু, সর্বসাং- মাসদাইর বারইভােগ, থানা- ফতুল্লা, জেলা- নারায়ণগঞ্জ গণের বিরুদ্ধে এই মর্মে অভিযােগ দায়ের করিছে যে, উক্ত ১নং বিবাদীর সহিত আমার স্ত্রী মােসাঃ রাশিদা আক্তার (২৮) একই ফ্যাক্টরীতে চাকুরী করার সুবাদে পরিচয় হয়। অতঃপর উক্ত ১নং বিবাদী আমার স্ত্রীকে বিভিন্ন ভাবে ফুসলাইয়া ও প্রলােভন দেখাইয়া আমার স্ত্রীর সহিত প্রায় সময়ই মােবাইল ফোনের মাধ্যমে এবং ইমো, ম্যাসেঞ্জারে ভিডিও কলে আমার স্ত্রীর সহিত কথাবাতা বলিত। সেই সুযােগে উক্ত ১নং বিবাদী আমার স্ত্রীর ছবি তাহার মােবাইলে স্ক্রীণ শর্ট মারিয়া রাখে এবং আমার স্ত্রী সহিত তাহার কু-প্রস্তাবে রাজি না হয় তাহা হইলে আমার স্ত্রীর উক্ত ছবি এডিট করিয়া সামাজিক যােগাযােগ মাধ্যমে ছাড়িয়া আমার ও আমার স্ত্রীর সম্মানহানী করিবে মর্মে জানায়। এযাবতকাল ১নং বিবাদীর ইন্দনে ও পরামর্শে ২ হইতে ৫নং বিবাদীগণ আমাকে আমার স্ত্রী নিয়া উক্ত এলাকা হইতে চলিয়া যাওয়ার বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীতি ও জীবন নাশের হুমকি প্রদান করিয়া আসিতেছে। ১নং বিবাদী আমার স্ত্রীর ছবি ইন্টারনেটে ছাড়িয়া দিবে মর্মে জানাইয়া আমার নিকট প্রায় সময়ই টাকা পয়সা দাবী দাওয়া করিত। অতঃপর গত ইং- ২১/০১/২০২১ তারিখ রাত্ অনুমান ১২.০০ ঘটিকার সময় উক্ত ১নং বিবাদীর ইন্দনে ও পরামর্শে ২ হইতে ৫নং বিবাদীগণ মাসদাইর বারইভােগস্থ ফারিহা নীট টেক্স লিঃ নামীয় আমার কর্মস্থলের সামনে আমাকে পাইয়া অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতঃ বিভিন্ন প্রকার ভয়-ভীতি ও জীবন নাশের হুমকি প্রদান করে এবং আরও বলে যে, তুই ও তাের স্ত্রী যদি ১নং বিবাদীর দাবী দাওয়া পূরণ না করিস তাহা হইলে ১নং বিবাদীর নিকটে থাকা তাের স্ত্রীর ছবি বিভিন্ন সামাজিক যােগাযোগ মাধ্যমে ছাড়িয়া দিয়া তােদের সামাজিক মর্যাদা ক্ষুন্ন করিব। তােদেরকে এই এলাকায় শান্তিতে থাকিতে দিব না। আর যদি এই ঘটনার বিষয়ে কোন প্রকার বাড়াবাড়ি করিস তাহা হইলে তােকে সহ তাের স্ত্রীকে যেকোন মিথ্যা মামলায় ফাসাইয়া দিব বলিয়া জানায়। উক্ত বিবাদীগণ এরূপকার্যকলাপ করিয়া আমাকে ও আমার স্ত্রীকে হয়রানী করিতেছে। বিবাদীগণ যেকোন সময় আমার ও আমার স্ত্রীর আরও বড় ধরনের ক্ষতি সাধন করিতে পারে বলিয়া আমার আশঙ্কা হইতেছে। বিষয়টি আত্মীয়-স্বজনের সহিত আলােচনা করিয়া এবং স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গদেরকে অবহিত করিয়া থানায় আসিয়া অভিযােগ দায়ের করিতে বিলম্ব হইলাম।

 

নারায়ণগঞ্জ কথা এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Shares