ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের নব কমিটির হাজ্বী মোঃ রাজিব হোসেন মিঠু সহ-দপ্তর সম্পাদক হওয়াতে এলাকাবাসী আনন্দিত

 

নারায়ণগঞ্জ কথা : ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের নব কমিটিতে সহ দপ্তর সম্পাদক হাজ্বী মোঃ রাজিব হোসেন মিঠু  হাওয়াতে বৃহত্তর মাসদাইর বাসী সহ পুলিশ লাইন সংলগ্ন লৌহ মার্কেটের ব্যবসায়ীগনরা আনন্দ উল্লাস করছেন ও  তার বন্ধু বান্ধব দলীয় কর্মী সমর্থকরা আনন্দ উল্লাস করেন।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) বিকেলে বৃহত্তর মাসদাইর ও পুলিশ লাইন সংলগ্ন লৌহ মার্কেটে এ আনন্দ উল্লাস করেন।

এ সময় এলাকাবাসী বলেন, হাজ্বী মোঃ রাজিব হোসেন মিঠু দক্ষিণ মাসদাইর এলাকার একজন বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সমাজ সেবক তিনি এই স্থানে পৌঁছাতে (২৫)টি বছর অপেক্ষার পাশাপাশি বহু কষ্ট মিথ্যা-মামলা হামলার-শিকার হন, ১৯৯৬ইং সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ,কে,এম শামীম ওসমান নাঃগঞ্জ(৪) আসনের মনোনয়ন পাওয়ার পরই হাজ্বী মোঃ রাজিব হোসেন মিঠুর নেতৃত্বে দক্ষিণ মাসদাইর এলাকায় নৌকা মার্কা প্রতিক এর নির্বাচনি ক্যাম্প করে নিজ অর্থায়নে মিছিল মিটিং করেন এক সময় তিনি দক্ষিণ মাসদাইর এলাকায়  আলোচনায় উঠে আসেন।

আওয়ামীলীগ সরকার নির্বাচনে জয়লাভ করে। আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করলেও দল থেকে কোন সুযোগ-সুবিধা নেয়নি তিনি, তার পিতার কাছ থেকে সহযোগিতা ও সাহস পেয়ে দলীয় কর্মকান্ড চালায়। এবং সহ বড় বড় সভা-সমাবেশ নিজ অর্থায়নে করেন ও বিভিন্ন সময় বিশাল মিছিল  নিয়ে আওয়ামী লীগের সমাবেশে যোগদান করেছেন। এছাড়াও তাদের প্রাণ প্রিয় ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন নিজ অর্থায়নে খাবার বিতরণ করেছেন। কারো কাছে হাত পাতেননি কখনো ।

তার কর্মী বাহিনীর খরচ ও দিয়েছেন নিজ থেকে, ২০০১ইং নির্বাচনে যখন বি,এন,পি-জামায়েত জোট সরকার ক্ষমতায় আসে তখন মামলা-হামলার শিকার হয়ে তিনি এলাকা বাবা-মা ভাই-বোন সবাইকে ছেড়ে ঢাকা চলে যান, বিকেল বেলা ঢাকা-পাটি অফিসে নাঃঞ্জের বহু বড় ভাই বন্ধুেদের সাথে আড্ডা করে বুকে চাপা কষ্ট গুলো ভুলে থাকতে চেষ্টা করতেন। এদের মধ্যে যেমন ছিলো আমাদের শ্রদ্ধেয় মামা এ,এম সেলিম (টাওয়ার সেলিম) যিনি আজ আমাদের মাঝে নেই।

শ্রদ্ধেয় হেলাল ভাই, শ্রদ্ধেয় নিপু ভাই, মামুন ভাই, এম,এ মান্নান সহ বহু নাঃঞ্জে ত্যাগী ত্যাগী আওয়ামীলীগের  ভাই বন্ধু, এভাবে (৩) টি বছর পার করে ঢাকা-পাটি অফিসে,তার পর আসতে আসতে এলাকায় অবস্থান নেয় আবার শুরু করে নতুন করে দল গোছানো, শুরু করে আবার মিছিল মিটিং এবং আমাদের মহান নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর শাহাদাৎ বার্ষিকীর  মিলাদ মাহফিল দোয়া ও রান্না করা খাবার বিতরণ অনুষ্ঠানে এসেছেন।

ফতুল্লা থানার নেতৃবৃন্দগনরা এম, সাইফুউল্লাহ বাদল কাকা, এম,শওকত চেয়ারম্যান,শহিদুল্লাহ কাকা,মতিউর রহমান প্রধান প্রমুখ, আমাদের প্রানপ্রিয় নেতা আমাদের রাজনীতির প্রেরনা এ,কে,এম শামীম ওসমান (শামীম ভাইয়ের)ফোনে নিদেশনায় আবার ২০০৬ নির্বাচনের জন্য মিছিল মিটিং করে, নির্বাচনে জয় লাভ করে ক্ষমতায় আসলো আমাদের প্রিয়দল আওয়ামীলীগ সরকার, হাজ্বী মোঃ রাজিব হোসেন মিঠু ছোট বেলা থেকেই আওয়ামীলীগের সাথে জড়িত হয়ে দলের জন্য  কাজ করতে থাকেন, এলাকার উন্নয়নে দলীয় ভাবে না পারলেও তার পিতার কাছে আবদার করতেন, পিতাও ছেলের আবদার রাখতেন,  যার বড় একটি উদাহরণ ঘোষেরবাগ এলাকার ড্রেন ও রাস্তাটি নির্মাণ করে দেন, এর পাশাপাশি এলাকায় পঞ্চায়েত কমিটি করে তার বাবা মরহুম আফজাল হোসেন সাহেব, এই পঞ্চায়েত পরিষদ থেকে  অবহেলিত মানুষের মাঝে ঈদ-সামগ্রী,বিনামূল্যে চিকিৎসা,ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য স্কুল ব্যগ-বই-খাতা ইত্যাদি দিয়ে এলাকার অসহায় মানুষের জন্য কাজ করে যান, হাজ্বী মোঃ রাজিব হোসেন মিঠু আওয়ামীলীগের এসোষ্ট তারা দল থেকে নেন না তারা দলকে দিতেই ভালো বাসে, তার সহ-যোদ্ধা ফারুক হোসেন সানভী জানান–সে কখনো দলের নাম বিক্রি করে কিছু করতে যায়নি এবং আমাদের সব-সময় সেটাই বলে দেয়।

এ বিষয়ে হাজ্বী মোঃ রাজিব হোসেন মিঠু নারায়ণগঞ্জ কথা ডটকম  অনলাইন পত্রিকার সাংবাদিক কে বলেন,আমার বিষয়ে আমার নেতাকর্মীরা যা কিছু বলেছেন, সবই সত্য এগুলো আমার অতীতের ঘটনা। যা ভুলে গিয়ে আমি নতুন করে দেশবাসীর জন্য কাজ করতে চাই।  আমার জন্য দেশবাসী সকলে দোয়া করবেন। আমাকে যে সন্মান দিয়েছেন আমি যেন তা সঠিক ভাবে পালন করতে পারি আমাকে জন্য দোয়া করবেন,এবং আমি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানাই আমার প্রানের প্রিয় রাজনীতির শিক্ষাগুরু, আমার রাজনীতির অনুপ্রেরণা, আলহাজ্ব এ,কে,এম শামীম ওসমান (শামীম ভাইকে) আমি ধন্যবাদ জানাই ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব এম,সাইফুউল্লাহ বাদল ভাইকে, আমি ধন্যবাদ জানাই ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব শওকত আলী চেয়ারম্যানকে,  ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান চেয়ারম্যান সহ আমার  সকল সিনিয়র নেতৃবৃন্দকে আমি ধন্যবাদ জানাই।

 

নারায়ণগঞ্জ কথা এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

Shares